রায়হানকে ৩১ আগস্ট দেশে পাঠাতে পারে মালয়েশিয়া

0
355

করোনা মহামারিতে মালয়েশিয়ায় অবৈধ প্রবাসীদের দুরাবস্থা নিয়ে আলজাজিরা টেলিভিশনে সাক্ষাৎকার দেওয়ার ঘটনায় গ্রেপ্তার বাংলাদেশি নাগরিক মো. রায়হান কবিরকে ৩১ আগস্ট দেশে ফেরত পাঠাতে পারে মালয়েশিয়ার সরকার।

রায়হানের বিরুদ্ধে তদন্ত শেষ হলেই তাকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির ইমিগ্রেশন মহাপরিচালক খাইরুল জাইমি দাউদ।

দ্য মালয়েশিয়ান ইনসাইটের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আজ বুধবার পুত্রজয়ায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে খাইরুল জাইমি এ কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘আমি অনুমান করতে পারছি না কখন রায়হানকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হবে, তবে বাংলাদেশের প্রথম ফ্লাইটে তাকে পাঠানো হবে। আর ওই ফ্লাইটটি ৩১ আগস্ট।’

এর আগে তদন্তের স্বার্থে রায়হানকে ১৪ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়।

চলতি লকডাউনে মালয়েশিয়ার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সে দেশে বসবাসরত অবৈধ অভিবাসীদের প্রতি বৈষম্যমূলক ও বর্ণবাদী আচরণ করেছে বলে আলজাজিরা টেলিভিশনকে জানিয়েছেন রায়হান কবির (২৫)।

গত ৩ জুলাই আলজাজিরার ইংরেজি অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে ‘লকডআপ ইন মালয়েশিয়ান লকডাউন-১০১ ইস্ট’ শীর্ষক একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

ওই প্রতিবেদনটিকে দেশটির কর্তৃপক্ষ ভুল, বিভ্রান্তিকর ও পক্ষপাতদুষ্ট বলে অভিহিত করে।

২৫ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের ওই প্রতিবেদনে করোনাভাইরাস মহামারিতে মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের সঙ্গে সরকারের আচরণ নিয়ে কথা বলেছিলেন রায়হান কবির।

সংবাদমাধ্যমটির ইউটিউব চ্যানেলে প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর থেকে এর সমালোচনা শুরু করে মালয়েশিয়া। দেশটির সরকার ওই প্রতিবেদনে তোলা অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করে।

আলজাজিরার ওই প্রতিবেদন প্রচারের পর থেকেই সাক্ষাৎকার দাতা রায়হান কবিরের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে মালয়েশিয়ার অভিবাসন কর্তৃপক্ষ। তার বিষয়ে তথ্য দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিবৃতিও দেওয়া হয়। পরে রায়হানের ওয়ার্ক পারমিট (কাজের অনুমতি) বাতিল করে দেওয়া হয়।

এরপর তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে দেশটির ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের এক টুইট বার্তায় জানানো হয়। গ্রেপ্তারের পর তাকে ১৪ দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ।